সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ব্যক্তিগত সহকারী পরিচয় দিয়ে প্রতারণা

শুরু দিকে পরিচয় দিতেন ছাত্রলীগ নেতা। পরবর্তীতে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ব্যক্তিগত সহকারী হিসেবে পরিচয় দিতেন। এধরনের ভুয়া পরিচয়ে সরকারি চাকরি, পদায়ন বা পদোন্নতির বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে গত কয়েক বছরে হাতিয়ে নিয়েছেন লাখ লাখ টাকা। অভিযুক্ত ব্যক্তি ঢাকা কলেজের সাবেক ছাত্র মোজাম্মেল হককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মোজাম্মেল হক ইয়াসিন ঢাকা কলেজের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের প্রাক্তণ ছাত্র। নিজের ফেসবুক আইডিতে নিজেকে উল্লেখ করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ও ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির প্রাক্তণ সদস্য হিসেবে। অথচ তিনি ছাত্রলীগের কোনো পদেই ছিলেন না।

ছাত্রলীগ নেতা পরিচয় দেওয়া এই মোজাম্মেল হক একসময় নিজেকে দাবি করেন সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী হিসেবে। তৈরি করে নেন ভুয়া পরিচয়পত্র ও সিল। সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের স্বাক্ষর জাল করে ভুয়া সুপারিশের মাধ্যমে বিভিন্ন সরকারি দফতরে চাকরি, বদলি ও পদায়নের নামে শুরু করেন অভিনব প্রতারণা। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অধীনে একটি চাকরির সুপারিশ করতে গেলে নজরে আসে তার এই বিষয়টি। পরবর্তীতে তা পুলিশকে জানানো হলে তাকে গ্রেফতার করে। এরপর থেকেই পুলিশের কাছে আসতে থাকে তার নামে বিস্তর অভিযোগ।

এই মোজাম্মেল নামে মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কোনো ব্যক্তিগত সহকারী ছিল না বা এখনও নেই বলে জানিয়েছেন তার এপিএস আবুল তাহের মোহাম্মদ মহিদুল হক।

এদিকে, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (লালবাগ বিভাগ) সাইফুর রহমান আজাদ জানান, ২০১৭ সাল থেকেই বিভিন্ন প্রতারণা করে আসছিল মোজাম্মেল। তার বিরুদ্ধে উঠা সব অভিযোগ তদন্ত করে দেখছে পুলিশ।

সূত্র : বিডি প্রতিদিন।